ঢাকাবুধবার , ১লা ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ
  1. অর্থনীতি
  2. আইটি বিশ্ব
  3. আজকের ঢাকা
  4. আজকের রাশিফল
  5. আদর্শ সদর
  6. আমাদের পরিবার
  7. আর্ন্তজাতিক
  8. ইসলামী জীবন
  9. উদ্ভাবন
  10. করোনা
  11. কুমিল্লা
  12. কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়
  13. কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশন
  14. খুলনা
  15. খেলাধুলা
আজকের সর্বশেষ সবখবর

কুবিতে পয়ঃনিষ্কাশন ব্যবস্থার বেহাল দশায় প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষন

Edited by_Sakib al Helal
জুন ২২, ২০২১ ১১:৩৬ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

সকালের কুমিল্লা ডেস্ক।।

যত্রতত্র ময়লা আবর্জনার স্তুপ, বিভিন্ন ভবনের বাথরুম ও বেসিন পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন না রাখায় কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুবি) পয়ঃনিষ্কাশন ব্যবস্থার বেহাল দশা বিরাজ করছে। এতে বহুমুখী দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে কুবি শিক্ষার্থীদের। এ নিয়ে প্রশাসনের নেই কোনো উদ্যোগ।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় যে, ক্যাম্পাসের বিভিন্ন আঙ্গিনা ময়লা আবর্জনার স্তুপ জমে থাকায় বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বাভাবিক সৌন্দয্য নষ্ট হয়ে সৃষ্টি হচ্ছে জলাবদ্ধতা। একাডেমিক ভবনগুলোর বাথরুম ও বেসিনে বিরাজ করছে স্যাঁতসেঁতে অবস্থা। শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, নিয়মিত বাথরুম ও বেসিন পরিষ্কার না করা, পানির নষ্ট কলগুলো সময়মত মেরামত না করার কারণে এই নাজুক অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে।

এদিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক ভবনের প্রতি তলার দুই ব্লকে ৮ টি বাথরুম ও ৬ টি বেসিন থাকলেও অধিকাংশ বেসিনই ব্যবহারের অনুপোযোগী। অধিকাংশ সময় বাথরুমগুলো বন্ধ থাকলে উন্মুক্ত বাথরুমগুলোতে নেই সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনা। প্রশাসনিক ভবনের ৫ম তলায় লাইব্রেরি থাকলেও নেই কোনো ধরনের পয়ঃনিষ্কাশন ব্যবস্থা। এতে লাইব্রেরিতে পড়তে আসা শিক্ষার্থীদের পড়তে হয় বিব্রতকর অবস্থায়।

এ বিষয়ে নৃবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী মোহন চক্রবর্তী বলেন, দীর্ঘদিন পর ক্যাম্পাসে আসার পর সবকিছু ঠিকঠাক ভাবে পেলেও বাথরুম, বেসিন ও পানির কল নিয়ে পড়তে হচ্ছে বিব্রতকর অবস্থায়। সুস্থ পরিবেশের অভাবে অনেকটা নোংরা পরিবেশের মধ্য দিয়েই যেতে হচ্ছে আমাদের। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের এমন উদ্যোগ বিহীন কর্মকাণ্ডই সুস্থ পরিবেশের পথে বাধা।

জনবল সংকট ও ডিন অফিসের উপর দায়িত্ব চাপিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের এস্টেট অফিসের পরিচালক মো. মিজানুর রহমান বলেন, পুরো ক্যাম্পাস আমাদের নজরদারি করা সম্ভব হয় না । একাডোমক ভবনগুলোর কর্মকাণ্ড পরিচালনা করার জন্য আমাদের জনবল ওই খানে থাকলেও তাদের পরিচালনার দায়িত্ব ডিন অফিসের।

পরীক্ষা নেওয়ার আগে এস্টেট শাখা পরিচ্ছন্নতার অভিযান চালিয়েছে বলে মত প্রকাশ করে সমাজবিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. আমিনুল ইসলাম আকন্দ। তবে সার্বিক বিষয় নিয়ে অবগত করলে তিনি বলেন, পরীক্ষার আগে তারা করেছে কি? ক্যাম্পাসে তো তারা দশজন জনশক্তি নিয়োগ করে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার অভিযান চালিয়েছে। আমি এ ব্যাপারে ব্যবস্থা নিচ্ছি।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিষ্ট্রার (অতিরিক্ত দায়িত্ব) ড. মো. আবু তাহের বিরক্তি প্রকাশ করে বলেন, তারা এ কাজগুলো করে রাখে না কেন। আমি এ ব্যাপারে ব্যবস্থা নিচ্ছি।

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।