ঢাকাসোমবার , ২০শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
  1. অর্থনীতি
  2. আইটি বিশ্ব
  3. আজকের ঢাকা
  4. আজকের রাশিফল
  5. আদর্শ সদর
  6. আমাদের পরিবার
  7. আর্ন্তজাতিক
  8. ইসলামী জীবন
  9. উদ্ভাবন
  10. করোনা
  11. কুমিল্লা
  12. কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়
  13. কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশন
  14. খুলনা
  15. খেলাধুলা
আজকের সর্বশেষ সবখবর

নার্সারি ব্যবসায় সমৃদ্ধ পরিহলপাড়াবাসি

Edited by_Sakib al Helal
সেপ্টেম্বর ১১, ২০২১ ৬:০৫ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

সাকিব আল হেলাল।।
পরিহলপাড়া। ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের পাশে অবস্থিত একটি গ্রাম। কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার এই গ্রামে বছরজুড়ে লেগে থাকে গাছের চারা উৎপাদন, পরিচর্যা ও বিক্রির উৎসব। এই গ্রামে প্রায় প্রতিটি বাড়িতে রয়েছে নার্সারি।

নার্সারির আয়ে এসেছে কৃষকের ঘরে সমৃদ্ধি। এ ছাড়া পাশের মনিপুর, কালাকচুয়া এলাকায়ও ২০টির মতো নার্সারি রয়েছে।
সরেজমিনে পরিহলপাড়ায় গিয়ে দেখা যায়, মহাসড়কের পাশে ক্রেতাদের পিকাপ ভ্যান, রিকশা ভ্যানের সারি। কেউ এসেছেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা থেকে, কেউ চাঁদপুরের হাজীগঞ্জ থেকে। নার্সারির মালিক চারার দরদাম করছেন। শ্রমিকরা জমি থেকে চারা তুলছেন। অন্য শ্রমিকরা গাড়িতে চারা তুলে দিচ্ছেন। কপালের ঘাম গামছায় মুছে টাকা গুনছেন নার্সারির মালিক।

হাতে নগদ টাকা পেয়ে খুশি তিনি।
কুমিল্লার বরুড়া উপজেলার খোশবাস থেকে এসেছেন ক্রেতা শাহ আলম। তিনি বলেন, তার নিজের ছোট নার্সারি আছে। এখানে বিভিন্ন ফলের গাছ পাওয়া যায় তাই এসেছেন। তিনি আম্রপালি আমের চারা, পেয়ারা, জলপাই, মাল্টা ও কমলার চারা কিনেছেন।
এই ব্যবসা করে পরিবার নিয়ে ভালো আছেন।

এই গ্রামে ১৯৯২ সালে প্রথম নার্সারি স্থাপন করেন আবদুল হাকিম। তার দেখাদেখি অন্য নার্সারি গড়ে উঠে। তিনি বলেন, ময়মনসিংহ এলাকায় ইন্টারন্যাশনাল ডেভোলেপমেন্ট এন্টারপ্রাইজেস নামের সংস্থায় কাজ করতেন। সেখানে নার্সারি দেখেন। অবসরের পর এলাকায় এসে অল্প পুঁজি নিয়ে এই ব্যবসা শুরু করেন। তার দেখাদেখি গ্রামে ছোট বড় ৩০টির বেশি নার্সারি রয়েছে। প্রতিটিতে গড়ে পাঁচজন শ্রমিক রয়েছে। এছাড়া পরিবহন শ্রমিক রয়েছে। এই পেশায় গ্রামের অধিকাংশ মানুষ জড়িত। তাই এলাকায় কোন চুরি ডাকাতি নেই।
আরেকজন ব্যবসায়ী হারুনুর রশিদ বলেন, তিনি ১৯৯৪ সাল থেকে এই ব্যবসা করছেন। এই পেশার মাধ্যমে তার পরিবারে সমৃদ্ধি এসেছে। তিনি প্রথম বছর ১০ হাজার টাকা পুঁজি দিয়ে লাখ টাকা আয় করেছেন। তিনি আরো বলেন, এখন ফলের চারা চাহিদা বেড়েছে। সারা বছরই চারা বিক্রি হয়। তবে বর্ষায় কাঠ গাছ ও ফলের চারা এবং শীতে ফুলের চারা বেশি বিক্রি হয়।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা মো. মিজানুর রহমান বলেন, জেলার বুড়িচং উপজেলার নিমসার সংলগ্ন গ্রাম গুলোতে বেশি নার্সারি রয়েছে। এর মাধ্যমে তারা সমৃদ্ধ হওয়ার পাশাপাশি প্রাকৃতিক ভারসাম্য রক্ষায়ও ভূমিকা রাখছে।

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।